অপরাধ

নেই প্রথম সন্তানের বাবার পরিচয়, আবার অন্তঃসত্ত্বা মানসিক প্রতিবন্ধী!

“পাগলি টা মা হয়েছে ” কিন্তু বাবা হয়নি কেউ..
আজ আমাদের সমাজ কতটুকু নিচু পযায়ে গিয়েছে যে তার লালসার হাত থেকে এক পাগলীও রক্ষা পেলনা???

বরগুনার বামনা উপজেলায় মাসুমা আক্তার (৩৮) নামের এক মানসিক প্রতিবন্ধী চার মাসের অন্তঃস্বত্ত্বা হওয়ার অভিযোগ উঠেছে। এ ঘটনায় ওই প্রতিবন্ধীর আশ্রয়দাতা মো. হাশেম মল্লিক (৬৫) নামের এক বৃদ্ধকে গ্রেপ্তার করেছে পুলিশ।

এ ঘটনায় আজ সোমবার সকালে মানষিক প্রতিবন্ধী মাসুমা আক্তারের বড় ভাই মো. ফারুক মোল্লা আশ্রয়দাতা মো. হাশেম মল্লিককে আসামি করে একটি মামলা দায়ের করেছেন।

মাসুমার ভাই মো. ফারুক মোল্লা বলেন, ‘আমার বোন মানসিক প্রতিবন্ধী। এই সুযোগ কাজে লাগিয়ে হাশেম মল্লিক তাকে আশ্রয় দেওয়ার নাম করে যৌন নির্যাতন করত। এ কারণেই সে অন্তঃস্বত্ত্বা হয়। আমার প্রতিবন্ধী বোনটির সঙ্গে এ ধরনের ঘটনা যে ঘটিয়েছে, তার দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি চাই।’

জানা যায়, ওই প্রতিবন্ধী নারীর এর আগেও একটি সন্তান হয়েছে। বামনা উপজেলা সুশাসনের জন্য নাগরিক (সনাক) নেতা ওবায়দুল কবির আকন্দ দুলাল বলেন, ‘ওই নারীর প্রথম সন্তানটির বাবা কে, তাও জানেনা তার পরিবার, এমনকি ওই প্রতিবন্ধী নারী। দ্বিতীয়বার তিনি আবার মা হতে চলেছেন। এটা আমাদের সামাজে মানসিক বিকারগ্রস্ততার ফসল। এই ঘটনার সঙ্গে জড়িতদের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তি নিশ্চিত করা না হলে সমাজ আরও কলুষিত হবে।’

বামনা থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) মো. ইলিয়াস তালুকদার বলেন, ‘আমরা অভিযোগ পেয়ে ওই আশ্রয়দাতাকে আটক করি। পরে ভুক্তভোগী নারীর ভাই মামলা দায়ের করলে আজ সোমবার দুপুরে আসামিকে আদালতে নেওয়া হয়। এ ছাড়া ওই নারীকে ডাক্তারি পরীক্ষার জন্য বরগুনা হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে।’সূত্র : আমাদের সময়