অনেকেই সেটি না জেনে ব্যবহার করছেন এই অ্যাপ নিরাপত্তা হুমকি ফেসঅ্যাপে রয়েছে

0
495

অ্যাপটির ব্যবহার খুবই সহজ। অনেকেই সেটি না জেনে ব্যবহার করছেন এই অ্যাপ। ফেসবুক, টুইটারে নিজের বুড়ো বয়সের ছবি শেয়ার করছেন। ইন্টারনেটে সময়ের সবচেয়ে জনপ্রিয় বিষয় ফেসঅ্যাপ। অনেকেই এই অ্যাপ ব্যবহার করে নিজের বুড়ো বয়সের একটি কাল্পনিক ছবি দেখে নিচ্ছেন; কিন্তু এই অ্যাপের নিরাপত্তা হুমকি রয়েছে।

অনেকেই ফান হিসেবে বিষয়টি করছেন; কিন্তু এই ফেসঅ্যাপ তো কোন ঐশ্বরিক প্রোগ্রাম নয় যার মাধ্যমে ৩০ বছর পরের চেহারা দেখানো যাবে। কিন্তু অনলাইনে যা কিছু ফ্রি তার বেশির ভাগেই থাকে নিরাপত্তা হুমকি। এটি মানুষেরই তৈরি একটি মোবাইল অ্যাপ্লিকেশন।

আর মানুষের পক্ষে তো আর ৩০ বছর পরের চেহারা কল্পনা করা সম্ভব নয়। তাছাড়া এর বাইরেও এই অ্যাপটির রয়েছে বেশ কিছু নিরাপত্তা হুমকি। অ্যাপটি বর্তমান ছবিতে কিছু কারিকুরি করে ৩০ বছর পরের একটি ছবিতে রূপ দেয়। অর্থাৎ ৩০ বছর পরে ওই ব্যক্তির চেহারা কেমন হবে সেটি দেখানো হয়। এই অ্যাপটি ইনস্টল করার সময় ব্যবহারকারীকে এর সবগুলো শর্ত মেনে নিতে হয়; কিন্তু অনেকেই সেগুলো পড়েও দেখেন না যে কী সব শর্ত রয়েছে। না পড়েই সবাই ‘এগ্রি’ প্রেস করে অ্যাপটি ইনস্টল করেন।

যখনই একজন স্মার্টফোন ব্যবহারকারী ফেসঅ্যাপ ডাউনলোড করে ইনস্টল করবেন অ্যাপটি তার কাছে কিছু বিষয়ের অনুমতি চাইবে। যেমন স্মার্ট ফোনের গ্যালারি ও ক্যামেরায় প্রবেশের অনুমতি চাইবে অ্যাপটি। বেশির ভাগ ব্যবহারকারীই এসব শর্ত না পড়েই অনুমতি দিয়ে দেন এবং বেশির ভাগ ক্ষেত্রেই ব্যবহারকারীর ধারণা নাই অ্যাপটি তার স্মার্ট ফোনের সব জায়গায় প্রবেশাধিকার পাওয়ার পর কী করবে।

মোবাইল ফোনের গ্যালারি থেকে একটি ছবি সিলেক্ট করে অ্যাপে আপলোপ করতে হয়। এরপর বেশ কয়েকটি ‘টাচ’ ও কৃত্তিম বুদ্ধিমত্তার ব্যবহারে অ্যাপ আপনার ছবিটিতে বয়স্ক রূপ দেবে। চশমা, দাড়ি যুক্ত করা কিংবা চুলের স্টাইল পরিবর্তন করার মতো আরো কিছু কাজ করা যায় ছবিটিতে।অনলাইন থেকে ফ্রি জিনিস নেয়ার আগে দ্বিতীয়বার ভাবা উচিত বলে মনে করেন বিশেষজ্ঞরা।

LEAVE A REPLY

Please enter your comment!
Please enter your name here